The Business Post
বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ০৯, ২০২১

প্রচ্ছদ বাণিজ্য

নিজস্ব প্রতিবেদক
০৮ ডিসেম্বর ২০২১ ১৯:৫৭:২৫

প্রতারণার অভিযোগে কিউকম’র সিইও গ্রেপ্তার

প্রতারণার অভিযোগে কিউকম’র সিইও গ্রেপ্তার

প্রতারণার অভিযোগে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান কিউকম-এর সিইও রিপন মিয়াকে গ্রেপ্তার করেছে ডিএমপির গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)।

সোমবার সকালে ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনস বিভাগের পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

সম্প্রতি ইভ্যালি, ই-অরেঞ্জসহ বেশ কয়েকটি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে গ্রাহক ও সরবরাহকারীদের সময় মতো পণ্য ও পাওনা পরিশোধ না করার অভিযোগ ওঠে। এরই মধ্যে গ্রেপ্তারও হয়েছেন কয়েকজন। বিদেশেও পালিয়ে গেছেন অনেকে।

প্রতারণা ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে বেশ কয়েকটি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের পরিচালকদের নজরদারিতে রাখা হয়, এর মধ্যে কিউকম একটি।

সংশ্নিষ্টরা জানিয়েছেন, ব্যাপক ডিসকাউন্টের ফাঁদে দেশের প্রায় পাঁচ লাখ লোকের ৮ থেকে ১০ হাজার কোটি টাকা আটকা পড়েছে এসব বিতর্কিত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের কাছে। এর মধ্যে ক্রেতা আছেন আড়াই থেকে ৩ লাখ। আর সরবরাহকারী রয়েছেন দেড় থেকে ২ লাখ। আট থেকে ১০টি প্রতিষ্ঠানের কাছে বেশিরভাগ গ্রাহকের টাকা আটকা পড়েছে। 

এছাড়া, দালাল প্লাস, শ্রেষ্ঠ ডটকম এবং ফাল্গুনী শপের বিরুদ্ধেও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে অভিযোগ করেছেন গ্রাহকরা। এ রকম আরও কয়েকটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে যাদের বিরুদ্ধে ক্রেতা ও সরবরাহকারীদের পাওনা আটকে রাখার অভিযোগ ওঠে।

অভিযোগ থাকা আলেশা মার্ট, ধামাকা, ই-অরেঞ্জ, সিরাজগঞ্জ শপ, আলাদীনের প্রদীপ, কিউকম, বুমবুম, আদিয়ান মার্ট ও নিডডটকমডটবিডি-এ ৯ ই-কমার্স কোম্পানির সর্বশেষ আর্থিক পরিস্থিতির তথ্য চেয়ে সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংককে চিঠি দেয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

চিঠিতে ক্রেতা ও মার্চেন্টদের কাছে কোম্পানিগুলোর মোট দায়ের পরিমাণ এবং কোম্পানিগুলোর চলতি ও স্থায়ী মূলধনের পরিমাণসহ কোম্পানিগুলো অন্যত্র অর্থ স্থানান্তর করেছে কি না, এসব তথ্য চাওয়া হয়।