The Business Post
শনিবার, জুন ১৯, ২০২১

প্রচ্ছদ স্বাস্থ্য

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৯ জুন ২০২১ ১৭:৩৮:০৬

শীঘ্রই টিকার যৌথ উৎপাদন নিয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

শীঘ্রই টিকার যৌথ উৎপাদন নিয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

করোনাভাইরাসের টিকা উৎপাদন বিষয়ে চলমান আলোচনায় অগ্রগতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন।

বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় প্যালেস্টাইনকে অনুদান হিসেবে মেডিকেল সামগ্রী দেয়ার একটি অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘শীঘ্রই দেশে যৌথভাবে টিকা উৎপাদন বিষয়ে একটি আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হবে। বাংলাদেশে টিকা উৎপাদনের জন্য স্থানীয় ওষুধ প্রস্তুতকারী কোম্পানি নির্বাচন করা সংশ্লিষ্টরা দেখবেন।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘একবার উৎপাদন শুরু হলে দেশে টিকার কোনও সংকট তৈরি হবে না। আশা করি আমরা নিজেদের প্রয়োজন মিটিয়ে ভ্যাকসিন রপ্তানিকারক হয়ে উঠবো।’

এর আগে বুধবার ইকোনিমক রিপোর্টার্স ফোরাম এবং বাংলাদেশ চীন চেম্বার অব কমার্সে এন্ড ইন্ডাসিট্রির (বিসিসিসিআই) যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় চীনা রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বলেছেন, ‘চীনের কাছ থেকে বাংলাদেশের ভ্যাকসিন সংগ্রহ এবং যৌথভাবে করোনার টিকা উৎপাদনের ব্যাপারে দুই দেশের মধ্যে ফলপ্রসূ আলোচনা চলছে।’

বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনা এই রাষ্ট্রদূত জানান, যৌথভাবে টিকা উৎপাদনের ব্যাপারে আলোচনা বেশ ভালোভাবেই এগিয়ে যাচ্ছে।

লি জিমিং বলেন, ‘চীনের দুঃসময়ে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে মেডিকেল সামগ্রী সহায়তার কথা ভুলবে না চীন। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের প্রয়োজনের বন্ধুত্বের বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে চীন।’

তিনি জানান, চীন সরকার খুব দ্রুতই দ্বিতীয় দফায় উপহার স্বরূপ আরও টিকা পাঠাবে। আগামী ১৩ জুনের মধ্যে টিকা বাংলাদেশে এসে পৌঁছাবে বলে আশাব্যক্ত করেন রাষ্ট্রদূত লি জিমিং।

এর আগে গত ১২ মে চীন সরকারের পক্ষ থেকে ৫ লাখ ডোজ করোনার টিকা উপহার হিসেবে বাংলাদেশে পৌঁছায়। এর ৯ দিনের মাথায় চীন সরকার দ্বিতীয় দফায় উপহার স্বরূপ টিকা পাঠানোর ঘোষণা দেয়।